যদি শালের বন হ’ত শালার বোন

যদি শালের বন হ’ত শালার বোন,
ক’নে বউ হ’ত ঐ গৃহেরই কোণ,
ছেড়ে যেতাম না গো শালার বোন,
আমি থাকতাম পড়ে সদা, খেতাম না গো, শালার বোনথ –
বনে হারিয়ে যেতাম,
শালার বোন ঐ বৃন্দাবনে না হয় চারিয়ে যেতাম –
দাদা গো, ওগো দাদা –
আর মাকুন্দ হত যদি কুন্দবালা,
হ’ত দাড়িম্ব সুন্দরী দাড়িওয়ালা,
আমি ঝুলে যে পড়তাম দাড়ি ধ’রে তার –
জয়নাথ তরকনাথ বলে আমি ঝুলে যে পড়তাম দাড়ি ধ’রে,
বাবা দুগ্‌গা ব’লে আমি ঝুলে যে পড়তাম দাড়ি ধ’রে তার –
দাদা গো, ওগো দাদা –
আহা বাচ্চা হইত যদি চৌবাচ্চায়
নিতি পানকৌড়ি হ’য়ে ডুবে থাকিতাম তায়,
যদি দামড়ার ল্যাজ হ’ত কুন্তল দাম
বেণী রূপে ল্যাজ ধ’রে মাঠে দাঁড়াতাম – ঘুরে যে বেড়াতাম, তার
আমি ল্যাজ ধ’রে ঘুরে যে বেড়াতাম, দাদা গো –
যদি ভাগ্যগুণে এক মিলিল শালী –
বাবা বিশাল বপু তার সে যে বিশালী,
ওযে শালী নয় শালী নয়, শাল্মলী তরু সম
সে যে বিশালী গো, শাল্মলী তরু সম সে যে বিশালী গো, –
আহা চিম্‌টি শালীর হ’ত বাবলা কাঁটা,
হ’ত শর-বন তার খ্যাংড়া ঝ্যাঁটা
খ্যাংড়া মেরে বিষ ঝেড়ে যে দিত গো –