আমি চাঁদ নহি, চাঁদ নহি অভিশাপ

আমি চাঁদ নহি, চাঁদ নহি অভিশাপ
শূন্য হৃদয়ে আজো নিরাশায় আকাশে করি বিলাপ।।
শত জনমের অপূর্ণ সাধ ল’য়ে
আমি গগনে কাদিঁ গো ভুবনের চাঁদ হয়ে
জোছনা হইয়া ঝরে গো আমার অশ্রু বিরহ-তাপ।।
কলঙ্কহয়ে বুকে দোলে মোর তোমার স্মৃতির ছায়া
এত জোছনায় ঢাকিতে পারিনি তোমার মধুর মায়া।
কোন সে সাগর মন্থন শেষে মোরে
জড়াইয়া যেন উঠেছিলে প্রেমভরে
হায় তুমি গেছ চলে বুকে তবু দোলে তব অঙ্গের ছাপ।।

Categories

আমি চিরতরে দুরে চলে যাব

আমি চিরতরে দুরে চলে যাব,
তবু আমারে দেবনা ভুলিতে।।
আমি বাতাস হইয়া জরাইব কেশে,
বেণী যাবে যবে খুলিতে।।
তোমার সুরের নেশায় যখন
ঝিমাবে আকাশ কাঁদিবে পবন,
রোদন হইয়া আসিব তখন
তোমার বক্ষে ঝুরিতে।।
আসিবে তোমার পরমোৎসবে
কত প্রিয়জন কে জানে,
মনে পড়ে যাবো কোন সে ভিখারি
পায়নি ভিক্ষা এখানে।
তোমার কুঞ্জ পথে যেতে হায়!
চমকি থামিয়া যাবে বেদনায়,
দেখিবে কে যেন মরে মিশে আছে
তোমার পথের ধুলিতে।।

Categories

আঁধার রাতে কে গো একেলা

আঁধার রাতে কে গো একেলা 
নয়ন সলিলে ভাসালে ভেলা।। 
কাঁদিয়া কারে খোঁজ ওপারে 
আজও যে তোমার প্রভাত বেলা।। 
সোনার কাঁকন ও দুটি করে 
হেরোগো জড়ায়ে মিনতি করে। 
খুলিয়া ধূলায় ফেলোনা গো তায় 
সাধিছে নূপুর চরণ ধরে।। 
হেরো গো তীরে, কাঁদিয়া ফিরে 
আজিও রূপের রঙের মেলা
Categories

আ্জি এ কুসুম-হার সহি কেমনে

আ্জি এ কুসুম-হার সহি কেমনে।
ঝরিল যে ধূলায় চির-অবহেলায় কেন এ অবেলায় পড়ে তারে মনে।।
তব তরে মালা গেঁথেছি নিরালা সে ভরেছে ডালা নিতি নব ফুলে।
(আজি) তুমি এলে যবে বিপুল গরবে সে শুধু নীরবে মিশাইল বনে।।
আঁখিজলে ভাসি’ গাহিত উদাসী আমি শুধু হাসি’ আসিয়াছি ফিরে।
(আজি) সুখ-মধুমাসে তুমি যবে পাশে সে কেন গো আসে কাঁদাতে স্বপনে।।
কার সুখ লাগি’ রে কবি বিবাগী সকল তেয়াগি’ সাজিলি ভিখারি।
(তুই) কার আঁখিজলে বেঁচে র’বি ব’লে ফুলমালা দ’লে লুকালি গহনে।।
আ্জি এ কুসুম-হার সহি কেমনে

Categories

আসিবে তুমি জানি প্রিয়

আসিবে তুমি জানি প্রিয়
আনন্দে বনে বসন্ত এলো
ভুবন হল সরসা, প্রিয়-দরশা, মনোহর।

বনানতে পবন অশান্ত হল তাই
কোকিল কুহরে, ঝরে গিরি নির্ঝরিণী ঝর ঝর।

ফুল্ল যামিনী আজি ফুল সুবাসে
চন্দ্র অতন্দ্র সুনীল আকাশে
আনন্দিত দীপান্নিত অম্বর।

অধীর সমীরে দিগঞ্চল দোলে
মালতী বিতানে পাখি পিউ পিউ বোলে
অঙ্গে অপরূপ ছন্দ আনন্দ-লহর তোলে
দিকে দিকে শুনি আজ আসিবে রাজাধিরাজ
প্রিয়তম সুন্দর।।

Categories

আমি সুন্দর নহি জানি হে বন্ধু জানি

আমি সুন্দর নহি জানি হে বন্ধু জানি
তুমি সুন্দর, তব গান গেয়ে নিজেরে ধন্য মানি।।
আসিয়াছি সুন্দর ধরণীতে
সুন্দর যারা তাদেরে দেখিতে
রূপ-সুন্দর দেবতার পায় অঞ্জলি দেই বাণী।।
রূপের তীর্থে তীর্থ-পথিক যুগে যুগে আমি আসি’
ওগো সুন্দর বাজাইয়া যাই তোমার নামের বাশিঁ।
পরিয়া তোমার রূপ-অঞ্জন
ভুলেছে নয়ন রাঙিয়াছে মন
উছলি’ উঠুক মোর সঙ্গীতে সেই আনন্দখানি।।

Categories

আমার কোন কুলে আজ ভিড়লো তরী

আমার কোন কুলে আজ ভিড়লো তরী
এ কোন সোনার গাঁয়?
আমার ভাটির তরী আবার কেন
উজান যেতে চায়?
দুখেরে কান্ডারী করি
আমি ভাসিয়েছিলাম ভাঙ্গা তরী
তুমি ডাক দিলে কি স্বপন পরী
নয়ন ইশারায় গো?
নিভিয়ে দিয়ে ঘরের বাতি
ডেকেছিলে ঝড়ের রাতি
কে এলে মোর সুরের সাথি
গানের কিনারায়?

Categories

আসে বসন্ত ফুলবনে

আসে বসন্ত ফুলবনে
সাজে বনভূমি সুন্দরী ।
চরণে পায়েলা রুমঝুম
মধুপ উঠিছে গুঞ্জরি ।।

ফুলরেণু – মাখা দখিণা বায়
বাতাস করিছে বন – বালায় ,
বন কবরী-নিকুঞ্জ-ছায়
মুকুলিকা ওঠে মুঞ্জরি ।।

কুহু আজি ডাকে মুহুমুহু
পিউ কাহা কাঁদে উহু উহু ,
পাখায় পাখায় দোহে দুহু
বাধে চঞ্চর চঞ্চরী ।।

দুলে আলো-ছায়া বন –দুকূল,
ওড়ে প্রজাপতি কলকা ফুল ,
কর্ণে অতসী স্বর্ণ-দুল
আলোক-লতার-সাত-নোরী ।।

পদ্ম ডলিয়া পায়ে বালা
করিয়াছে সারা বন আলা ,
দ্বারে মঞ্জরী-দ্বীপ জ্বালা
ডালপালা রচে ফুলছড়ি ।।

কবি, তোর ফুলমালি কেমন ,
ফাগুনে শুন্য পুস্পবন ,
বরিবি বুরে এলে কানন
রিক্ত হাতে কি ভুল ভরি ।।

Categories

আমার বিফল পূজাঞ্জলি অশ্রু-স্রোতে যায় যে ভেসে

আমার বিফল পূজাঞ্জলি অশ্রু-স্রোতে যায় যে ভেসে
তোমার আরাধিকার পূজা হে বিরহী, লও হে এসে॥
খোঁজে তোমায় চন্দ্র তপন
পূজে তোমায় বিশ্বভুবন,
আমার যে নাথ ক্ষণিক জীবন মিটবে কি সাধ ভালবেসে॥
না দেখা মোর, বন্ধু ওগো কোথায়, তুমি কোথায়, বাঁশি বাজাও একা,
প্রাণ বোঝে তা অনুভবে নয়ন কেন পায় না দেখা।
সিন্ধু যেমন বিপুল টানে
তটিনীরে টেনে আনে,
তেমনি করে তোমার পানে আমায় ডাকো নিরুদ্দেশে॥

Categories

আমিনা-দুলাল নাচে হালিমার কোলে

আমিনা-দুলাল নাচে হালিমার কোলে
তালে তালে সোনার বুকে সোনার তাবিজ দোলে।।
সে কাঁদিলে মুক্তা ঝরে হাসলে ঝরে মানিক
ঈদের চাঁদে লেগে আছে সেই খুশির খানিক।
তাঁর কচি মুখে খোদার কালাম আধো আধো বলে।।
দেখেছিল লুকিয়ে সে নাচ কোটি গ্রহতারা
আসমানে তাই ঘোরে তারা আজো দিশাহারা
সেদিন নেচেছিল বিশ্বভুবন ইয়া মোহাম্মদ ব’লে।।
কোরানের আয়াতে লেখা সেই নাচেরই ছন্দ
তকবীরের ধ্বনিতে বাজে তাহারি আনন্দ
আমি থাকলে সেদিন হতাম ধূলি তাঁহার পায়ের তলে।।

Categories