বুলবুল (১ম খন্ড)

বিখ্যাত নজরুলগীতি সংকলন বুলবুল ১৫ নভেম্বর ১৯২৮ ( আশ্বিন, ১৩৩৫ ) তারিখে (১ম সংস্করণ)। প্রকাশক ডি এম লাইব্রেরি, কলকাতা। সুরশিল্পী দিলীপ কুমার রায়কে এই গ্রন্থটি উৎসর্গ করেছিলেন বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল। সাধারণ সংস্করণ ও রাজ সংস্করণের মূল্য ছিল যথাক্রমে এক টাকা ও পাঁচ সিকা। গ্রন্থের দ্বিতীয় সংস্করণ প্রকাশিত হয় ১৩৩৫ বঙ্গাব্দের চৈত্র মাসে। ৪৯টি গান ছিল এই সংস্করণে।

এ গ্রন্থে সমাহৃত গানগুলো হলোঃ-

বাগিচার বুলবুলি তুই
আমারে চোখ-ইশারায়
বসিয়া বিজনে কেন একা মনে
ভুলি কেমনে আজো যে মনে
কেন কাঁদে পরান কী বেদনায়
মৃদুল বায়ে বকুল-ছায়ে
কে বিদেশী বন-উদাসী
করুণ কেন অরুণ আঁখি
এত জল ও-কাজল চোখে
আসে বসন্ত ফুলবনে
দুরন্ত বায়ু পুরবইয়াঁ
চেয়ো না সুনয়না আর চেয়ো না
পরান-প্রিয়! কেন এলে অবেলায়
সখি জাগো,রজনী পোহায়
নিশি ভোর হল জাগিয়া
এ বাসি বাসরে আসিলে কে গো
বসিয়া নদীকূলে এলোচুলে
কেন দিলে এ কাঁটা যদি গো
সখি, বলো বঁধুয়ারে নিরজনে
নহে নহে প্রিয়, এ নয় আঁখি-জল
এ আঁখি-জল, মোছ পিয়া
কি হবে জানিয়া বল কেন জল নয়নে
পরদেশী বঁধুয়া, এলে কি এতদিনে
কেন উচাটন মন পরান এমন করে
আসিলে এ ভাঙা ঘরে কে মোর রাঙা অতিথি
আজি দোল-পূর্ণিমাতে দুলবি তোরা আয়
রুমুঝুমু কে এলে নূপুর পায়
আজি এ কুসুম-হার সহি কেমনে
গরজে গম্ভীর গগনে কম্বু
হাজার তারার হার হয়ে গো দুলি
অধীর অম্বরে শুরু-গরজন
ঝরে ঝরঝর কোন্ গভীর-গোপন ধারা
হৃদয় যত নিষেধ হানে
শুকাল মিলন-মালা আমি তবে যাই
স্মরণ-পারের ওগো প্রেয়ি
গহীন রাতে ঘুম কে এলে ভাঙাতে
কোন শরতে পূর্ণিমা চাঁদ
জাগিলে ‘পারুল’ কি গো
চরণ ফেলি গো মরণছন্দে
নমো যন্ত্রপতি
পুরবের তরুণ অরুণ
কে শিবসুন্দর শরৎ-চাঁদ-চুড়
কার নিকুঞ্জে রাত কাটায়ে
কেন আন ফুল-ডোর
কেমনে রাখি আঁখি-চাপিয়া
কেন আসিলে যদি যাবে চলি
সাজিয়াছ যোগী বল কার লাগি
মুসাফির! মোছ্ এ আঁখি-জল
এ নহে বিলাস বন্ধু

error: